এইচএসসি ফরম ফিলাপ ২০২১ – সময় বৃদ্ধি

এইচএসসি ফরম ফিলাপ ২০২১এইচ এস সি ফরম ফিলাপ ফি ২০২১Hsc ফরম ফিলাপ ২০২১Hsc ফরম ফিলাপ কত টাকাএইচএসসি ফরম ফিলাপ ২০২১ কত টাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বাের্ড এর অধীনে ২০২১ সালে অনুষ্ঠিতব্য উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষার Online এ ফরম ফিলাপ ও প্রয়ােজনীয় ফি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বাের্ড, ঢাকায় জমা দেয়ার তারিখ, কি এর হার ও নিয়মাবলি আমাদের এই পোষ্ট থেকেই জানতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য : বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ অতিমারীর কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে বসে ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ ও পরীক্ষার ফি সম্পূর্ণরূপে অনলাইনে প্রদান করতে হবে। কোন অবস্থাতেই পরীক্ষার্থী বা তার অভিভাবককে প্রতিষ্ঠানে স্বশরীরে আসতে বলা যাবে না। প্রয়ােজনে মােবাইল ফোনে যােগাযােগ করতে হবে।

এইচএসসি ফরম ফিলাপের সময় আবারও বৃদ্ধি পেয়েছে

এইচএসসি ফরম ফিলাপ ২০২১

সুপ্রিয় বন্ধুরা! আপনারা এই আর্টিকেল থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ২০২১ সালের এইচএসসি ফরম ফিলাপের নিয়ম, ফরম ফিলাপ ফি, ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার সিলেবাস, যারা ফরম ফিলাপ করতে পারবে, ফরম ফিলাপের বিজ্ঞপ্তি সহ ফরম ফিলাপ পদ্ধতি বিস্তারিতভাবে জানতে পারবেন। চলুন শুরু করা যাক!

এইচএসসি ফরম ফিলাপ শুরু ১২/০৮/২০২১ হতে
প্রতিষ্ঠান কর্তৃক sms প্রেরনের সময় ২২/০৯/২০২১ পর্যন্ত
পরীক্ষার্থী কর্তৃক ফি দেয়ার সময় ২৬/০৯/২০২১ পর্যন্ত
ফরম ফিলাপের লিংকhttps://sbl.com.bd:7070/BoardFee
সোনালি এপডাউনলোড লিংক

আরও দেখুন : আলিম ফরম ফিলাপ ২০২১

এইচএসসি ফরম ফিলাপ নিয়ম ২০২১

এবারের ২০২১ সালের এইচএসসি ফরম ফিলাপ সম্পূর্ণ নতুন পদ্ধতিতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষক উভয়ের সম্মিলিত অনলাইন প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন হবে। এ জন্য প্রথমে পরীক্ষার্থীকে অনলাইনে সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে একটি সচল মোবাইল নম্বর সহ প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিতে হবে। কি কি তথ্য দিতে হবে শিক্ষার্থী তার কলেজের ফেসবুক গ্রুপ বা ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারবে এবং কিভাবে দিবে তাও জানতে পারবে।

কলেজ কর্তৃপক্ষ সকল শিক্ষার্থীর তথ্য অনলাইনে সাবমিট করলে বোর্ড থেকে শিক্ষার্থীর দেয়া মোবাইল নম্বরে একটি SMS দেয়া হবে। এতে পরীক্ষার্থীর নাম, এইচএসসি রেজিস্ট্রেশন নম্বর, এসএসসি (SSC) রােল, বাের্ড ফি, কেন্দ্র ফি ও প্রতিষ্ঠানের পাওনাসহ সর্বমােট ফি আলাদা আলাদাভাবে জানিয়ে দেয়া হবে। এরপর শিক্ষার্থীকে ৩০/০৮/২০২১ তারিখের মধ্যে ফি প্রদান করতে হবে।

এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি জমা দেয়ার নিয়ম ২০২১

২০২১ সালের এইচএসসি / সমমান পরীক্ষার ফরম ফিলাপের ফি বিভিন্ন মাধ্যমে দেয়া যাবে। তবে সকল পদ্ধতিই অনলাইন প্রক্রিয়ায় এবং পরীক্ষার্থী নিজে নিজেই তার ফরম ফিলাপের ফি দিতে পারবে। তবে এ জন্য প্রথমে অনলাইনে ফরম ফিলাপ করতে হবে। অনলাইনে ফরম ফিলাপ দুইভাবে করা যাবে। যথা: “Sonali e-Sheba” মােবাইল অ্যাপ এবং সোনালি ব্যাংকের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এবং সবশেষে ফরম ফিলাপের ফি দিতে হবে। তাহলে চলুন ফরম ফিলাপ পদ্ধতি ও ফি জমা দেয়ার নিয়ম জেনে নেওয়া যাক :

একজন এইচএসসি শিক্ষার্থী এই লিংক ব্যবহার করে অথবা “Sonali e-Sheba” মােবাইল অ্যাপ এর মাধ্যমে প্রথমে অনলাইনে ফরম ফিলাপ করবে। Sonali e-Sheba অ্যাপটি ডাউনলোড করুন এখান থেকে। আপনি যদি মোবাইল অ্যাপ থেকে ফরম ফিলাপ করেন তাহলে অ্যাপটি খুলার পর HSC/Eqiv. Form Fill-up অপশনটি সিলেক্ট করবেন। আর যারা লিংক থেকে আবেদন করবেন তাদেরকে শুধু লিংকে ক্লিক করলেই হবে।

এবার Board Name ড্রপডাউন লিস্ট থেকে শিক্ষা বাের্ড নির্বাচন করুন। অতঃপর ১০ সংখ্যার এইচএসসি এর রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং ৬ সংখ্যার এসএসসি / দাখিল / সমমান এর রােল নম্বর প্রদান করে “Check” বাটনে ক্লিক করুন। তবে প্রদানকৃত তথ্যে ভুল থাকলে “Data Not Found” ম্যাসেজ প্রদর্শিত হবে। এক্ষেত্রে পুনরায় সঠিক তথ্য প্রদান করে “Check” বাটনে ক্লিক করুন।

এবার আপনার দেয়া তথ্যের সঠিকতা যাচাই করতে ডিসপ্লেতে প্রদর্শিত সকল তথ্য (শিক্ষার্থীর নাম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম, মােবাইল নম্বর, দাখিল / সমমান এর রােল নম্বর ও আলিম / সমমান এর রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং মােট টাকার পরিমাণ) সঠিক আছে কি না তা চেক করুন। তথ্য সঠিক থাকলে ফি পরিশােধের জন্য “Confirm Payment” বাটনে ক্লিক করুন।

ফি পরিশােধের জন্য “OK” বাটনে ক্লিক করলে চিত্রে প্রদর্শিত Sonali Payment Gateway পেজ প্রদর্শিত হবে। উক্ত পেজ থেকে এবার আপনি আপনার পছন্দমত যে কোন একটি অপশন ব্যবহার করে ফি পরিশােধ করতে পারবেন। আপনি এবার মােবাইল ব্যাংকিং (bKash, Nagad, Rocket, Upay) ও যে কোন ব্যাংকের ভিসা / মাস্টার কার্ড, এমেক্স কার্ড, ডাচ-বাংলা ব্যাংকের নেক্সাস কার্ড এবং সােনালী ব্যাংক লিমিটেডের কোন শাখায় আপনার একাউন্ট থাকলে “Account Transfer” থেকে ফি প্রদান করতে পারবেন। নিম্নে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ফি প্রদান করার নিয়মাবলি দেয়া হলো :

আপনি যদি মােবাইল ব্যাংকিং bKash এর মাধ্যমে ফি পরিশােধ মাধ্যমে ফি পরিশােধ করতে চান তাহলে “Mobile Banking” আইকনে ক্লিক করে bKash আইকনে ক্লিক করুন। নিম্নে প্রদর্শিত ২য় ছবির ন্যায় পেজ প্রদর্শিত হলে আপনার বিকাশ নম্বরটি প্রদানপূর্বক “Confirm” বাটনে ক্লিক করুন। এরপর আপনার বিকাশ নম্বরে SMS এর মাধ্যমে একটি Verification Code প্রেরিত হবে, যা উপরের ৩য় ছবিতে প্রদর্শিত bKash Verification Code ফিল্ডে প্রদান করে “Confirm” বাটনে ক্লিক করলে সফলভাবে ফি পরিশােধিত হবে এবং bKash থেকে একটি SMS নােটিফিকেশন মােবাইল নম্বরে প্রেরিত হবে।

আপনি যদি মােবাইল ব্যাংকিং Nagad এর মাধ্যমে ফি পরিশােধ করতে চান তাহলে “Mobile Banking” আইকনে ক্লিক করে নগদ আইকনে ক্লিক করুন। উপরে প্রদর্শিত দ্বিতীয় ছবির ন্যায় পেজ প্রদর্শিত হলে আপনার নগদ একাউন্ট নম্বর প্রদানপূর্বক “Proceed” বাটনে ক্লিক করে PIN প্রদান করলে সফলভাবে ফি পরিশােধিত হবে এবং নগদ থেকে একটি SMS নােটিফিকেশন মােবাইল নম্বরে প্রেরিত হবে।

আপনি যদি মােবাইল ব্যাংকিং Rocket এর মাধ্যমে ফি পরিশােধ করতে চান তাহলে “Mobile Banking” আইকনে ক্লিক করে রকেট আইকনে ক্লিক করুন। উপরে প্রদর্শিত দ্বিতীয় ছবির ন্যায় পেজ প্রদর্শিত হলে আপনার রকেট একাউন্ট নম্বর ও পিন প্রদানপূর্বক “submit” বাটনে ক্লিক করলে সফলভাবে ফি পরিশােধিত হবে এবং ডাচ – বাংলা ব্যাংক থেকে একটি SMS নােটিফিকেশন মােবাইল নম্বরে প্রেরিত হবে। সফলভাবে পেমেন্ট সম্পন্ন হলে একটি কনফার্মেশন এসএমএস (SMS) মােবাইলে প্রেরিত হবে এবং চিত্রে প্রদর্শিত পেমেন্ট স্লিপ প্রদর্শিত হবে যা সংরক্ষন করতে হবে।

ফি পরিশোধের পর পে স্লিপ সংরক্ষণ : এবার সফলভাবে পেমেন্ট সম্পন্ন হলে একটি কনফার্মেশন এসএমএস (SMS) মােবাইলে প্রেরিত হবে এবং চিত্রে প্রদর্শিত পেমেন্ট স্লিপ প্রদর্শিত হবে যা সংরক্ষন করতে হবে।

পেমেন্ট স্লিপ না পেলে নিম্ন চিত্রে প্রদর্শিত Menu Bar এ ক্লিক করে Search Bar এ ট্রানজেকশন নম্বর লিখে সার্চ বাটনে ক্লিক করলে পেমেন্ট স্লিপ পাওয়া যাবে। Help menu – তে এইচএসসি / আলিম / সমমান পরীক্ষার ফরম ফিলাপের ফি পেমেন্ট সংক্রান্ত যাবতীয় সেবা প্রাপ্তির ই-মেইল এড্রেস ও মােবাইল নম্বর পাওয়া যাবে। Complain menu থেকে Make Complain অপশন ব্যবহার করে পেমেন্ট সংক্রান্ত যে কোনাে সমস্যা সমাধানের জন্য সাহায্য পাওয়া যাবে। Complain menu এর My Complain অপশন থেকে Complain ID অথবা Student ID ব্যবহার করে আপনার সাবমিটকৃত সমস্যার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

এক : নিয়মিত, অনিয়মিত, আংশিক বিষয়ে অকৃতকার্য, শুধু আবশ্যিক বিষয়ে অকৃতকার্য, প্রাইভেট পরীক্ষার্থী, জিপিএ উন্নয়ন সহ সকল ধরণের পরীক্ষার্থীকে অবশ্যই ফরম পূরণ করতে হবে। কেননা ফরম পূরণ ব্যতীত পরীক্ষার্থীর ফলাফল প্রকাশের সুযোগ নেই। দুই : নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন পরীক্ষার্থী ফি পরিশােধ করতে ব্যর্থ হলে তার ফরম পূরণ সম্পন্ন হয়নি বলে গণ্য হবে।

(গ) এক্ষেত্রে সােনালী ব্যাংক এবং মােবাইল ফিনান্সশিয়াল সার্ভিস (MFS) এর সার্ভিস চার্জও (বাের্ড কর্তৃক নির্ধারণকৃত) অপারেটর কেটে নিবে। যে অপারেটরের মাধ্যমে ফি পরিশােধ করা হবে সেই অপারেটরের সংশ্লিষ্ট একাউন্টে / ওয়ালেটে বোর্ড ফি , কেন্দ্র ফি ও প্রতিষ্ঠানের পাওনা এবং সার্ভিস চার্জসহ সর্বমােট টাকার ন্যূনতম ব্যাল্যান্স থাকতে হবে।

(ঘ) পেমেন্ট করার পর পরীক্ষার্থীকে তার ফরম পূরণ সম্পন্ন হয়েছে মর্মে একটি SMS এর মাধ্যমে নিশ্চিত করা হবে। কোন কারিগরি ত্রুটির কারণে পরীক্ষার্থী SMS না পেলে নিজ নিজ বাের্ডের ওয়েবসাইটের Student Panel থেকে তার ফরম পূরণের Status যে কোন সময় দেখতে পাবে। প্রতিষ্ঠানকর্তৃক নির্বাচিত পরীক্ষার্থীরাই ফরম পূরণের জন্য ফি জমা দিতে পারবে।

এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি ২০২১

এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি কত ২০২১? এবার যেহেতু ৩ টি বিষয়ে পরীক্ষা নেয়ার কথা বলা হয়েছে সেহেতু ৩ টি পত্রের ফি আসবে মাত্র ৩০০ টাকা। তাছাড়া আনুষঙ্গিক আরও কিছু মিলে ১৭৫/- টাকা সহ মোট বোর্ড ফি ও কেন্দ্র ফি গ্রুপ ভিত্তিক পৃথম পৃথক ছক আকারে দেয়া হলো :

বিবরণমানবিক শাখাকমার্স শাখাবিজ্ঞান শাখা
বোর্ড ফি৭৭০ টাকা ৭৭০ টাকা৮০০ টাকা
কেন্দ্র ফি (ব্যবহারিক সহ)৩০০ টাকা ৩০০ টাকা৩৬০ টাকা
সর্বমোট১০৭০ টাকা ১০৭০ টাকা১১৬০ টাকা
এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি ২০২১ – part ১

তবে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের বেতন এতে সম্পৃক্ত হবে। অর্থাৎ ২০১৯ সালের জুলাই হতে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত বেতন মিলে আরও দ্বিগুণ বা তার বেশি টাকা আসতে পারে। যাইহোক সব মিলিয়ে একজন (নিয়মিত, অনিয়মিত, জিপিএ উন্নয়ন ও প্রাইভেট) শিক্ষার্থীর এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি 2021 কত টাকা আসতে পারে, তা নিম্নের ছকে দেওয়া হলো :

পরীক্ষার্থীর ধরণমোট ফি যা দিতে হবে
নিয়মিত (মানবিক)১০৭০ টাকা + বেতন
নিয়মিত (কমার্স)১০৭০ টাকা + বেতন
নিয়মিত (বিজ্ঞান)১১৬০ টাকা + বেতন
অনিয়মিত (নতুন) যারা পূর্বে পরীক্ষা দেয়নি
অনিয়মিত (পুরাতুন) যারা পূর্বে পরীক্ষা দিয়েছে
জিপিএ উন্নয়ন
প্রাইভেট
এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি ২০২১ – part ২

বিশেষ দ্রষ্টব্য : মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় কোন পরীক্ষার্থীর নৈর্বাচনিক বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা থাকলে বর্ণিত ফি এর সাথে অতিরিক্ত ৩০/- টাকা যােগ হবে। রেজিস্ট্রেশন কার্ডে উল্লেখিত সেশন প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষ মিলে সর্বমােট ২৪ মাস (অর্থাৎ ০১ জুলাই ২০১৯ হতে ৩০ জুন ২০২১ পর্যন্ত) এর বাইরে বেতন / ফি / সেশনচার্জ বা অন্য কিছু আদায় করা যাবে না। কোন অবস্থাতেই নির্ধারিত ফি এর অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা যাবে। এ সংক্রান্ত কোন তথ্য পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট কলেজের ফরম ফিলাপ প্যানেল বন্ধ করা করা সহ প্রয়ােজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এইচএসসি পরীক্ষা পদ্ধতি ২০২১

২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষা ২০২১ উপলক্ষে কোন নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না এবং এ সংক্রান্ত কোন ফি আদায় করা যাবে না এবং এ বছর ডিসেম্বরে ৮৪ দিনের পাঠ পরিকল্পনার ভিত্তিতে ৩ টি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের।

২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার সংক্ষিপ্ত সিলেবাস

২০২১ সালের একজন (নিয়মিত) এইচএসসি পরীক্ষার্থী গ্রুপ ভিত্তিক ৩টি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে এবং আবশ্যিক ও ৪র্থ বিষয়ের কোনো পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। নিম্নোক্ত বিষয় / পত্রসমূহে পরীক্ষার সময় ও নম্বর হ্রাস করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা গ্রহন করা হবে। ৪র্থ বিষয়ের কোনো পরীক্ষা নেয়া হবে না এবং জেডিসি ও দাখিল পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতে সাবজেক্ট ম্যাপিং করে অন্যান্য বিষয় ও ৪র্থ বিষয়ে নম্বর প্রদান করা হবে।

বিষয় (২য় পত্র সহ)সিলেবাসের বিবরণ
রসায়ন, পদার্থবিদ্যা, জীববিজ্ঞান, উচ্চতর গণিত ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস ও সময় বন্টন অনুযায়ী সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র প্রণীত হবে
পৌরণীতি ও সুশাসন, সমাজকর্ম, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ইসিলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, অর্থনীতি, যুক্তিবিদ্যা ও ভুগোল ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ এবং ২০২১ সালের প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস ও সময় বন্টন অনুযায়ী সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র প্রণীত হবে
ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা, হিসাববিজ্ঞান, ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা, উথপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপনন ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ এবং ২০২১ সালের প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস ও সময় বন্টন অনুযায়ী সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র প্রণীত হবে
ইসলাম শিক্ষা ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ এবং ২০২১ সালের প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস ও সময় বন্টন অনুযায়ী সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র প্রণীত হবে
আরবি, লঘু সংগীত, উচ্চাঙ্গ সংগীত, ক্রীড়া ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্নপত্র প্রণীত হবে
গৃহ ব্যবস্থাপনা ও পারিবারিক জীবন, খাদ্য ও পুষ্টি, শিশু বিকাশ ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাস ও সময় বন্টন অনুযায়ী সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্নপত্র প্রণীত হবে

এক / দুই বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ সংক্রান্ত

যে সকল পরীক্ষার্থী ২০১৮ বা ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় এক বা একাধিকবার অংশগ্রহণ করে এক’দুই বিষয়ে (চতুর্থ বিষয় বাদে) অকৃতকার্য / অনুপস্থিত হয়েছে, রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকলে তারা ২০২১ সালে অনুষ্ঠিতব্য এইচএসসি পরীক্ষায় অবশিষ্ট অকৃতকার্য / অনুপস্থিত বিষয় / বিষয়সমূহের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

আংশিক বিষয়ে অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীগণ কখনই চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না । তবে পরীক্ষার্থীগণ ইচ্ছা করলে এক / দুই বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ না করে নিয়মিত পরিক্ষার্থীর ন্যায় গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ের পরীক্ষার জন্য ফরম পূরণ করতে পারবে।

যে সকল পরীক্ষার্থী ২০১৮/২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় একই বিষয়ে অকৃতকার্য / অনুপস্থিত হয়ে, ২০১৮ / ২০১৯ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় ঐ এক / দুই বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রণকালে বহিস্কার অথবা অভিযুক্ত হয়েছে এবং শৃঙ্খলা কমিটির সিদ্ধান্ত মােতাবেক ২০১৮/২০১৯/২০২০ সালের পরীক্ষা বাতিল হয়েছে, রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকলে তারা ২০২১ সালের সকল বিষয় (গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়) অথবা এক / দুই বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ফরম ফিলাপ করতে পারবে।

জিপিএ উন্নয়ের জন্য যারা আবেদন করতে পারবে ২০২১

রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ থাকলে জিপিএ উন্নয়নের জন্য পরিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার অব্যবহিত পরের বছরেই এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে; সেহেতু যে সকল পরীক্ষার্থী ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫.০০ এর কম পেয়েছে তারা জিপিএ উন্নয়নের জন্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযােগ পাবে। তবে এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষার্থীকে নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ন্যায় নৈর্বাচনিক ৩টি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে।

যে সকল পরীক্ষার্থী এক / দুই বিষয়ের ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পুরণ করে প্রবেশ পত্র পেয়েছে এবং উত্তীর্ণ হয়েছে তারা কখনই জিপি উন্নয়ন পৱীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না। আর জিপিএ উন্নয়নের ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন নবায়ন করা যাবে না।

আরও দেখুন

এইচএসসি ফরম ফিলাপের সময় বৃদ্ধি ২০২১

এইচএসসি ফরম ফিলাপ সময় পুণরায় বৃদ্ধি ২০২১
এইচএসসি ফরম ফিলাপ সময় পুণরায় বৃদ্ধি ২০২১
এইচএসসি ফরম ফিলাপ সময় বৃদ্ধি ২০২১
এইচএসসি ফরম ফিলাপ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

এইচএসসি ফরম ফিলাপের নিয়মাবলী ২০২১

(০১) কেবল বৈধ রেজিস্ট্রেশনবায়ী শিক্ষার্থীগণ আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবে। আংশিক বিষয়ের ( এক/দুই ) পরীক্ষার্থীদের জন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়সমূহের নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা বাধ্যতামূলক নয়। কোন পরীক্ষার্থী তার রেজিস্ট্রেশন বহির্ভূত কোন বিষয় / বিষয়সমূহের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলে উক্ত বিষয় / বিষয়সমুহের পরীক্ষা কোনরূপ যােগাযােগ ছাড়াই বাতিল হবে।

(০২) ২০১৬-২০১৭ সেশনের পূর্বের রেজিস্ট্রেশনধারী কোন পরীক্ষার্থী ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না। তবে ২০১৫ ২০১৬ সেশনের এক বিষয়ে অকৃতকার্য পরীক্ষার্থী ব্রেজিস্ট্রেশন নায়ন করে এক বিষয়ের (চতুর্থ বিষয় বাদে) পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

(০৩) একই নামের একাধিক ছাত্র – ছাত্রী থাকলে প্রকৃত পরীক্ষার্থী নির্বাচন করার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে নির্বাচন করতে হবে, যাতে প্রকৃত পরীক্ষার্থীর পরিবর্তে অন্য কোন শিক্ষার্থীর নাম নির্বাচিত না হয়। অনুরূপ ভুলের জন্য যাবতীয় দায় প্রতিষ্ঠান প্রধানকে বহন করতে হবে।

(০৪) নির্বাচিত পরীক্ষার্থীদের তালিকা মুদ্রণ করে প্রতিষ্ঠান প্রধান ও পরীক্ষার্থীর স্বাক্ষরসহ তালিকা সংরক্ষণ করতে হবে।

(০৫) যে সকল কলেজে ইংরেজি ভার্সনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণেচ্ছু পরীক্ষার্থী রয়েছে তাদের ০২ কপি তালিকা নিমােক্ত ছক অনুযায়ী তৈরি করে এ বিজ্ঞপ্তি প্রাপ্তির ০৫ দিনের মধ্যে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শাখার সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এর নিকট ০১ কপি এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শাখার সেশন অফিসার এর নিকট ০১ কপি হাতে হাতে জমা দিতে হবে এবং মুল কপি স্ক্যান করে hscdeb@gmail.com ই-মেইল ঠিকানায় পাঠাতে হবে। অন্যথায় সংশ্লিষ্ট কলেজের পরীক্ষার্থীদের ইংরেজি ভার্সনে শ্ৰীক্ষা গ্রহণ করা সম্ভব হবে না।

(৬) ঢাকা শিক্ষা বাের্ড হতে যে সমস্ত শিক্ষার্থী বাংলা বিকল্প সহজ পাঠ / বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও বাংলা ভাষার প্রাথমিক জ্ঞান বিষয়ে পরীক্ষা দেয়ার অনুমতি লাভ করেছে , তালের ০১ কপি তালিকা (অনুমতিপত্র সহ) এ বিজ্ঞপ্তি প্রাপ্তির ০৫ দিনের মধ্যে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শাখায় জমা দিতে হবে।

(৭) সােনালী ব্যাংকের সােনালী সেবার কপি ও পরীক্ষার্থীদের স্বাক্ষরসহ চুড়ান্ত প্রিন্ট আউট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সংরক্ষণ করবেন।

(৮) অবৈধ রেজিস্ট্রেশন, বাের্ডের অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে কলেজ বদলি ও অভিযুক্ত হবার কারণে কোন ছাত্র / ছাত্রী পরীক্ষার্থী হলে, সে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না। এ ছাড়াও অন্য যে কোন ধরনের অবৈধ শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় অবতীর্ণ হবার অনুমতি দিলে সংশ্লিষ্ট অধ্যক্ষ দায়ী থাকিবেন।

রেজিস্ট্রেশন নবায়ন সংক্রান্ত নিয়মাবলী ২০২১

(ক) যে সকল পরীক্ষার্থী ২০১৭, ২০১৮ ও ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় এক বা একাধিক বিষয়ের পরীক্ষা দিয়ে এক বিষয়ের (চতুর্থ বিষয় বাদে) পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে এবং কোন কারণে তারা ২০১৮ ও ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেনি কিন্তু ২০২০ সালে তাদের রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে তারাও ২৫০/- টাকা নবায়ন ফি বাের্ডে জমা দিয়ে শুধু এবারের জন্য রেৰ্জিস্ট্রেশন নবায়ন করে ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

(খ) রেজিস্ট্রেশন নবায়নকৃত পরীক্ষার্থীর নবায়ন ফি বাবদ টাকা ফরম পূরণের (eFF) ফি এর সাথে গ্রহণ করা হবে বিধায় নবায়নকৃত পরীক্ষার্থীকে আলাদাভাবে নবায়ন ফি বাবদ অর্থ প্রদান করতে হবে না।

(গ) এইচএসসি পরীক্ষা ২০২১ এর প্রবেশ পত্র বিতরণের দিন কলেজ কর্তৃপক্ষ নবায়নকৃত রেজিস্ট্রেশনধারী পরীক্ষার্থীদের মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ডে নবায়নের সিল ও প্রয়োজনীয় স্বাক্ষর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শাখা থেকে সংগ্রহ করতে হবে।

(ঘ) আংশিক বিষয়ের পরীক্ষার্থী হিসেবে কখনই চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা যাবে না এবং দুই বা ততোধিক বিষয়ে কৃতকার্য থাকলে কখনই রেজিস্ট্রেশন নবায়ন করা যাবে না।

21 thoughts on “এইচএসসি ফরম ফিলাপ ২০২১ – সময় বৃদ্ধি”

  1. Muhammad Ali ullah

    এটা কি শুধু সরকারি কলেজ গুলোর জন্য? নাকি বেসরকারি কলেজ গুলোর জন্য প্রযোজ্য? সরকারি আর বেসরকারি সব যদি সমান হয়ে থাকে তাহলে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গুলো ১৩০০০/১৪০০০ টাকা ফরম ফিলাপের জন্য দাবি করছে। কলেজের সকল পাওনা দেওয়ার পর কিভাবে এতো টাকা দাবি করছে কলেজ গুলো? এই বিষয়ে জানালে খুবই উপকার হবো ❤️

    1. না, বোর্ড কর্তৃক ফরম ফিলাপের টাকা সরকারি ও বেসরকারি সবার ক্ষেত্রে সমান। যেমন ধরুন, এবার সাধারণ বিভাগের ছাত্রের জন্য ফরম ফিলাপ ফি ১০৭০/- টাকা। আর বাদ বাকি কলেজের বেতন। তাই আপনার কলেজের বকেয়া বেতনের জন্য এমন হতে পারে।

    2. মোঃ জাহিদুল ইসলাম হৃদয়

      আসসালামুআলাইকুম। আমি নির্ধারিত সময়ের মধ‍্যে ফরম ফিলাপ করতে পারিনি। এখন ফরম ফিলাপ করার কোনো ব‍্যবস্থা আছে কি? দয়া করে জানাবেন।

      1. দুঃখিত! না। এক কাজ করতে পারেন আপনার প্রতিষ্ঠানে সেটা জানান। তারা বোর্ডকে বলবে। এভাবে কয়েক প্রতিষ্ঠান জানালে ফরম ফিলাপের মেয়াদ বাড়তে পারে।

  2. শিক্ষার্থী অসুস্থ অবস্থায় থাকলে তার স্বাক্ষর ব্যাতীত ফরম ফিলাপ সম্ভব নয় কি?

    1. স্বাক্ষর লাগবে না এবং শিক্ষার্থী নিজে কোনোকিছু না করতে পারলেও সমস্যা নেই। তার অভিভাবক অনলাইনে ফি প্রদান করলেই ফরম ফিলাপ হয়ে যাবে।

  3. Md Kabul Akter

    রেজিষ্ট্রেশন কার্ড এ পৌরনীতি পরিবর্তে অর্থনীতি চলে আসছে, প্রতিষ্ঠানে যোগাযোগ করলে তারা বলে পরিবর্তন হবে। এ বিষয়ে কি বোর্ড থেকে কোন নির্দেশ আছে?

    1. না বোর্ড থেকে এ ব্যাপারে কোনো বাধানিষেধ নেই। তবে আপনাকে আপনার কলেজে যোগাযোগ রাখতে হবে। এটা তাদের ভুলের জন্য হয়েছে। ৯০% ধারণা। যাইহোক পরিবর্তন হবে।

      1. Md Kabul Akter

        ফরম ফিলিপ করে ফেললে কি সাবজেক্ট পরিবর্তন হয়ে আসবে? আমি কতোদিন বিষয় এর জন্য অপেক্ষা করবো? কলেজ থেকে বলে বোর্ড যা করবে তাই, আমরা কিছু জানি না।

        1. হ্যা, বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। আর তা শুধু নৈর্বাচনিক ৩ টা বিষয়। তাও আবার গ্রুপ ভিত্তিক। আপনার গ্রুপের কোন কোন বিষয় আছে, তা উপরে দেওয়া সিলেবাসের টেবিল থেকে মিলিয়ে নিন।

  4. Farjana Ahmed Anika

    আমি একবার ফরম ফিলাপ করেছি, তখন লিখা আসল যে ফরম সাবমিট হয়েছে। তারপর কৌতূহল বশত এডিট অপশনে ক্লিক করি, কিন্তু এডিট করি নাই। কারন আমার কোনো ভুল হয়নি। তা না করে ওপেন ব্লানক স্পেস এ ক্লিক করি, তখন আমার ফিলাপ টা খালি হয়ে যায়। এখন আমি কিভাবে বুঝব যে ফরম টা সাবমিট হয়েছে কিনা? কলেজ থেকে বলে দিয়েছে যে ২ বার করলে বাতিল হয়ে যাবে। এখন কি করবো আমি?

  5. অকৃতকার্য নবায়ন কি কলেজ থেকে করতে হবে?

      1. হ্যা। রেজিস্ট্রেশন নবায়ন কি কলেজ থেকে করব? নাকি কম্পিউটার এ করা যাবে online এ?

        1. প্রথমত আপনাকে আপনার কলেজে আপনার মোবাইল নম্বর সহ তারা (কলেজ) যা যা দিতে বলে তা দিতে হবে। তারপর মোবাইলে মেসেজ আসলে আপনি ফি প্রদান করবেন। উক্ত ফি’র মধ্যে সকল ফি অন্তর্ভুক্ত থাকবে। বিধায় নবায়নের ফি আলাদাভবে দেয়া লাগবে না। আশাকরি বুঝেছেন। আর ফি তো আপনি নিজে নিজেই দিতে পারবেন। যদি আপনার বিকাশ, রকেট এসব থাকে। আশাকরি বুঝাতে পেরেছি।

    1. নিজ নিজ শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটের হোমপেজ চেক করুন। পেয়ে যাবেন।

  6. হ্যাপি আখতার

    স্যার আমি ২০০৫ সালে এসএসসি পরীক্ষায় পাস করেছি এখন কি এইচএসসিতে ভতি হতে পারবো? আমাকে জানাবেন

    1. হ্যা, প্রাইভেটে ভর্তি হতে পারতেন। তবে রেজিস্ট্রেশন করার সময় চলে গেছে। তবে আপনি চাইলে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এইচএসসি তে ভর্তি হতে পারবেন।

  7. কলেজ ফি মওকুফ করার সুযোগ কি কলেজের আছে?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!