অনার্স প্রফেশনাল ভর্তির ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন ২০২১

অনার্স প্রফেশনাল ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন ২০২১ : আপনি যদি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে অনার্স প্রফেশনাল ভর্তি কার্যক্রমের ১ম রিলিজ রিলিজ স্লিপ সংক্রান্ত খুঁটিনাটি তথ্যাবলি জানতে চান তাহলে আপনাকে স্বাগতম। এখানে আমি বিস্তারিতভাবে সকল কিছু আলোচনা করার চেষ্টা করবো :

অনার্স প্রফেশনাল ভর্তির ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন ২০২১

এই পোষ্ট টা আমরা যেসব প্রধান টপিক দিয়ে সাজিয়েছি তা হচ্ছে : ১) যারা রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবে ও যারা পারবে না। ২) যেভাবে আবেদন করলে রিলিজ স্লিপে চান্স হবে। ৩) আবেদন করার নিয়ম (বিস্তারিত) ৪) আবেদন করার পর করনীয়। ৫) রিলিজ স্লিপের আবেদন বাতিল করার নিয়ম। এই সমস্ত মেইন টপিক গুলো আমরা খুটিনাটি সহ সিরিয়ালি আলোচনা করার চেষ্টা করব। চলুন তাহলে শুরু করা যাক :

অনার্স প্রফেশনাল১ম রিলিজ স্লিপ
আবেদন শুরু০৯ জানুয়ারি ২০২২ হতে
আবেদন শেষ১৬ জানুয়ারি ২০২২ পর্যন্ত

অনার্স প্রফেশনাল ১ম রিলিজ স্লিপে আবেদন করার যোগ্যতা

  1. যারা ১ম মেধাতালিকা ও ২য় মেধাতালিকায় স্থান পায়নি।
  2. যারা ১ম ও ২য় মেধাতালিকায় স্থান পেয়েও ভর্তি হয়নি।
  3. যারা মেধাতালিকায় স্থান পেয়ে ভর্তি হয়ে ভর্তি বাতিল করেছে।
  4. তবে কলেজ কারোর প্রাথমিক আবেদন নিশ্চায়ন করা না করলে সে রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবে না।

যেভাবে রিলিজ স্লিপে আবেদন করলে চান্স হবে

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তিতে চান্সের বিষয়টা অনেক কিছুর উপর নির্ভর করে। তাই আবেদনের ক্ষেত্রে একটু সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। রিলিজ স্লিপে আবেদন করার আগে আপনাকে যেসব বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে নিম্নরুপ :

১) আপনি যে কলেজে আবেদন করবেন সেই কলেজে পর্যাপ্ত আসন খালি আছে কিনা ২) তাছাড়া আপনি শহর কেন্দ্রিক কলেজে আবেদন করবেন নাকি উপশহর (উপজেলা) কেন্দ্রিক কলেজে আবেদন করবেন ৩) আবার আপনার পয়েন্ট ও বয়স কত? ৪) আর আপনি গ্রুপ চেঞ্জ করে আবেদন করবেন কিনা?

এই সমস্ত বিষয়গুলো মাথায় রেখে আবেদন করলে রিলিজ স্লিপে চান্স হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। এখন আপনি কিভাবে নির্ণয় করবেন কোন কলেজে আবেদন করবেন আর কোন কলেজে আবেদন করবেন না। চলুন জেনে নেই :

১) আপনার পয়েন্ট যদি ৯.৫০ এর উপরে হয়ে থাকে তাহলে আপনি শহর কেন্দ্রিক সরকারি কলেজে আবেদন করতে পারেন। সেই ক্ষেত্রে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে যে উক্ত কলেজে কমপক্ষে ১০-১৫ সিট খালি আছে কিনা। যদি ৫ সিটের কম খালি থাকে তাহলে আবেদন না করাই ভালো। আর যদি বেসরকারি কলেজ হয় তাহলে ৮.৫০ এর উপরে হলে আবেদন করা যাবে। তবে সিট কম থাকলে আবেদন করা যাবে না।

২) আর আপনার পয়েন্ট যদি ৮.০০ এর উপরে হয় তাহলে উপজেলা কেন্দ্রিক সরকারি কলেজে আবেদন করতে পারেন। সেই ক্ষেত্রেও অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে যে উক্ত কলেজে কমপক্ষে ১০-১৫ সিট খালি আছে কিনা। যদি ৫ সিটের কম খালি থাকে তাহলে আবেদন না করাই ভালো। আর যদি বেসরকারি কলেজ হয় তাহলে ৭.০০ এর উপরে হলে আবেদন করা যাবে। তবে সিট কম থাকলে আবেদন করা যাবে না।

৩) এবার আসি গ্রুপ চেঞ্জ করে আবেদন করার বিষয়ে। এ ব্যাপারে আমার একান্ত মতামত হচ্ছে রিলিজ স্লিপে এসে গ্রুপ চেঞ্জ করে আবেদন না করাই ভালো। কারন এবার এমনি শিক্ষার্থীর পাসের হার বেশি আর রিলিজ স্লিপের সময় আসন সংখ্যাও কম থাকে সেহেতু গ্রুপ চেঞ্জ করে পিছিয়ে থাকার কোনো দরকার নেই। তবে একান্ত প্রয়োজন বা ইচ্ছা থাকলে ভেবে চিনতে আবেদন করবে। পয়েন্ট কম হলে নরমাল ও যে কলেজে আসন বেশি আছে সেটা তে আবেদন করবেন।

৪) আপনার যদি ইয়ার গ্যাপ না থাকে এবং পয়েন্ট ভালো হয় তাহলে অপেক্ষাকৃত ভালো মানের কলেজ ১ম চয়েজ দিতে পারেন আর অবশ্যই ৫ টি কলেজ চয়েজ দিবেন। এতে আপনার যদি ১ম চয়েজের কলেজ নাও আসে তাহলে পরের গুলোতে আসার সম্ভাবনা আছে।

৫) সবশেষে বলি সাবজেক্ট চয়েজ নিয়ে। যে কলেজে যে বিষয়ে সিট বেশি খালি থাকবে তা প্রথম চয়েজ দিবেন। তবে ভালো মানের বিষয়ে ১ম চয়েজ দিতে চাইলে অবশ্যই অবশ্যই অন্যান্য বিষয় সিলেক্ট করে দিতে হবে। আর আপনি যদি নির্দিষ্ট কোনো ১টি বিষয়ে আবেদন করতে চান তাহলে প্রতিটা কলেজ সিলেক্ট করার পর ঐ একটা বিষয় চয়েজ দিতে হবে। তবে এতে রিস্ক একটু থাকবে।

আবেদন করার সময় উপরিউক্ত বিষয় গুলো অনুসরণ করে আবেদন করলে ইন-শা-আল্লাহ ৯৮% চান্স হবে। তবে এখানে অনেক হিসাব নিকাশ আছে, যা আপনাকে নিজে নিজেই করতে হবে। তাই দয়াকরে একটু সময় নিয়ে বুঝে শুনে আবেদন করবেন।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রিলিজ স্লিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর

১) রিলিজ স্লিপ কি?

উত্তর : রিলিজ স্লিপ মানে ছাড়পত্র তবে পারিভাষিক অর্থে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তির ১ম মেধাতালিকা ও ২য় মেধাতালিকা এবং কোটা মেধাতালিকায় যারা চান্স পায়নি অথবা চান্স পেয়েও ভর্তি হয়নি, তাদের কে প্রক্রিয়ায় ভর্তি করানো হয় তাকে রিলিজ স্লিপ বলে।

২) প্রাথমিক আবেদন না করে রিলিজ স্লিপে আবেদন করা যাবে?

উত্তর : দুঃখিত! না

৩) পূর্বে যে কলেজে আবেদন করেছিলে সে কলেজে পুণরায় আবেদন করা যাবে?

উত্তর : হ্যা, অবশ্যই আসন খালি থাকা সাপেক্ষে পূর্বের কলেজে পূণরায় আবেদন করতে পারবে।

৩) কোন কলেজে কতটি আসন খালি আছে তা জানবো কিভাবে?

উত্তর : একবার প্রার্থী রিলিজ স্লিপে আবেদন করার সময় যতবার ইচ্ছা দেখতে পারবে। এর আগে দেখা সম্ভব নয়।

৪) কোন ধরণের কলেজে আবেদন করা যাবে?

উত্তর : সরকারি বা বেসরকারি যেকোনো ধরণের কলেজে আবেদন করা যাবে। এমনকি ভাগ করেও আবেদন করা যাবে।

৫) রিলিজ স্লিপে সর্বোচ্চ কয়টি কলেজে আবেদন করা যাবে?

উত্তর ; সর্বোচ্চ ৫ টি কলেজে আবেদন করা যাবে। তবে চাইলে একটি কলেজেও আবেদন করতে পারবেন। তবে এমন না করাই ভালো।

৬) রিলিজ স্লিপে কোনো কাগজপত্র জমা বা ফি দিতে হবে?

উত্তর : না, রিলিজ স্লিপে কোনো প্রকার কাগজপত্র জমা বা ফি দিতে হবে না।

৭) আবেদনে ভুল হলে কয়বার সংশোধন করা যাবে?

উত্তর : রিলিজ স্লিপের আবেদনে যেকোনো ধরণের ভুল সংশোধন শুধুমাত্র একবারই করা যাবে।

অনার্স প্রফেশনাল ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন নিয়ম

একজন শিক্ষার্থী নিজেই ঘরে বসে ১ম রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবে। এ জন্য তাকে যেমন কোথাও যেতে হবে না, তেমনি আবেদন করার পর কলেজে কোনো কিছু জমাও দিতে হবে না। এছাড়া প্রাথমিক আবেদনের জন্য কোনো প্রকার ফি’ দেওয়াও লাগবে না এবং সর্বনিম্ন ৫টি কলেজে আবেদন করতে হবে। নিম্নে ১ম রিলিজ স্লিপে আবেদন করার পদ্ধতি দেওয়া হলো :

  • ১ম রিলিজ স্লিপে প্রাথমিক আবেদন করতে হলে, প্রার্থীকে প্রথমে উপরিউকে লিংকে গিয়ে প্রাথমিক আবেদন ফরমের রোল নম্বর ও পিন নম্বর দিয়ে এন্ট্রি দিতে হবে। সঠিকভাবে রোল ও পিন নম্বর এন্ট্রি দিলে নিম্নোক্ত ছবির মত একটা পেইজ ওপেন হবে।
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-1
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন নিয়ম p-1
  • এখন সেখান থেকে Release Slip অপশন এ ক্লিক করুন। তারপর নিম্নোক্ত ছবির মত একটি পেইজ ওপেন হবে।
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-2
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-2
  • এরপর College Selection থেকে প্রথমে Division দিন (অর্থাৎ আপনি যে কলেজ চয়েজ দিতে চাচ্ছেন, সেটা যে জেলায় অবস্থিত, সেই জেলা সিলেক্ট করুন) তারপর, District select করুন।
  • এরপর কলেজের নাম দিন। কলেজ সিলেক্ট করার সাথে সাথে নিম্নোক্ত ভাবে ডান পাশে সাবজেক্ট লিস্ট এসে উঠবে।
 অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-3
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-3
  • এখানে লক্ষ্যনীয় যে, সাবজেক্টের সাথে সিট সংখ্যা উল্লেখ থাকবে। তাই, যদি কোনো কলেজ সিলেক্ট করার পর, উক্ত কলেজের সিট কম থাকে বা উক্ত কলেজের বিষয় আপনার পছন্দ হয় নি। তাহলে, সেটা বাদ দিয়ে অন্য কলেজে সিলেক্ট করবেন। যেটাতে সিট বেশি আছে সেটা দিতে পারেন। এভাবে আপনার ইচ্ছানুযায়ী কলেজ সিলেক্ট করতে পারবেন।
  • তারপর পছন্দ অনুযায়ী সাবজেক্ট আসলে সাব্জেক্টটি Select করবেন। একটি সাব্জেক্ট সিলেক্ট করলে নিম্নোক্ত ভাবে ছবি আসবে। এরপর নিচের দিকে Next অপশনে ক্লিক করবেন।
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-4
  • এখন পর্যন্ত আপনার একটি কলেজ চয়েজ দেওয়া হলো। এভাবে উপরিউক্ত নিয়মানুযায়ী আবার কলেজ ও সাব্জেক্ট চয়েজ দিয়ে Next এ ক্লিক করবেন।
  • এভাবে আপনাকে সর্বনিম্ন ৫টি কলেজে আবেদন করতে হবে। ৫ টি কলেজ চয়েজ দেওয়া হলে নিচের দিকে থাকা Next অপশন এর পাশে Preview Application এ ক্লিক করুন। এরপর তা নিম্নোক্ত ছবির মত প্রদর্শিত হবে।
 অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-5
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-5
  • তারপর দেখে নিন, আপনি যে যে কলেজে চয়েজ দিয়েছেন তা সঠিক আছে কি না। যদি ভুল হয়, তাহলে সম্পূর্ণ আবেদনটি কেনসেল করে, আবার প্রথম থেকে রোল ও পিন দিয়ে প্রবেশ করে আপনাকে আবেদন করতে হবে। আর, যদি সঠিক হয়, তাহলে নিচে থাকা submit অপশনে ক্লিক করুন। তারপর নিম্নোক্ত ছবির মত একটি পেইজ ওপেন হবে।
অনার্স ১ম রিলিজ স্লিপ আবেদন p-6
  • তারপর সেখান থেকে Download pdf অপশনে ক্লিক করুন। এরপর pdf ডাউনলোড হবে। একই সাথে আপনার রিলিজ স্লিপে আবেদন সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।

রিলিজ স্লিপে আবেদন করার পর করণীয়

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির ১ম রিলিজ স্লিপে আবেদন করার পর আবেদন ফরম টা ডাউনলোড করে নিজের কাছে রাখতে হবে। পরে ডাউনলোড করে প্রিন্ট করতে পারবেন। তবে উক্ত ফরম কলেজে জমা দিতে হবে না এবং এই আবেদনের সময় কোনো ফি দেওয়াও লাগবে না। সবশেষে ১ম রিলিজ স্লিপের ফলাফল প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

রিলিজ স্লিপের আবেদন বাতিল করার নিয়ম

যদি কেউ রিলিজ স্লিপে আবেদন করার পর তার আবেদন সংশোধন বা কলেজ পরিবর্তন বা ছবি পরিবর্তন করতে চায় তাহলে সে শুধুমাত্র একবার এই সুযোগ পাবে। এই জন্য তাকে তার পূর্বের আবেদন বাতিল করতে হবে এবং নতুন করে আবার আবেদন করার সুযোগ পাবে।

রিলিজ স্লিপের আবেদন বাতিল করতে আবেদনকারীকে এই লিংকে (http://app1.nu.edu.bd/) ক্লিক করে Applicant’s Login এ ক্লিক করতে হবে। তারপর রোল নম্বর ও পিন দিয়ে লগ-ইন করতে হবে। এবার প্রার্থী তার আবেদনের ড্যাশবোর্ড দেখতে পারবে।

এখন ডিসপ্লে তে প্রদর্শিত Cancel 1st Release Slip এ ক্লিক করতে হবে। তারপর Click to generate OTP অপশনে ক্লিক করতে হবে। এবার তুমি আবেদন করার সময় যে মোবাইল নম্বর দিয়েছ, ঐটাতে একটা কোড যাবে। (অবশ্যই ঐ মোবাইল নম্বরটি আপনার কাছে অথবা চালু থাকতে হবে)

কোড পাওয়ার পর খালি বক্সে সেটা দিয়ে Validate অপশনে ক্লিক করতে হবে। এবার Cancel release slip এ ক্লিক করে নিশ্চিত আবেদন বাতিল করার জন্য পূণরায় Cancel release slip এ ক্লিক করতে হবে। বেস! এখন তুমি নতুন করে আবার আবেদন করতে পারবে।

অনার্স প্রফেশনাল ১ম রিলিজ স্লিপে আবেদন বিজ্ঞপ্তি ২০২১

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!