দাখিল পরীক্ষার ফরম ফিলাপ ২০২২

দাখিল ফরম ফিলাপ ২০২২dakhil ফরম ফিলাপ ২০২২দাখিল ফরম ফিলাপ কত টাকাদাখিল ফরম ফিলাপ ২০২২ কত টাকা বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ড এর অধীনে ২০২২ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম ফিলাপের পূর্নাঙ্গ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। এখান থেকে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (দাখিল) পরীক্ষার Online ফরম ফিলাপ করার নিয়ম ও ফরম পূরণ ফি কত ও ফি জমা দেয়ার নিয়ম সহ জমা দেয়ার তারিখ, কি এর হার ও নিয়মাবলি আমাদের এই পোষ্ট থেকেই জানতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য : বিগত বছরের ন্যায় এবারও ঘরে বসে ২০২২ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরণ ও পরীক্ষার ফি সম্পূর্ণরূপে অনলাইনে প্রদান করতে হবে এবং কলেজকে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বকেয়া বেতন নিতে হবে। কোনোভাবে ২৪ মাসের বেতন নেয়া যাবে না।

দাখিল ফরম ফিলাপ ২০২২ যেভাবে করবেন

২০২২ সালের দাখিল ফরম ফিলাপ এবারও বিগত বছরের ন্যায় সম্পূর্ণ নতুন পদ্ধতিতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষক উভয়ের সম্মিলিত প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন হবে। এ জন্য প্রথমে পরীক্ষার্থীকে অনলাইনে সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে একটি সচল মোবাইল নম্বর সহ প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিতে হবে। কি কি তথ্য দিতে হবে শিক্ষার্থী তার কলেজের ফেসবুক গ্রুপ বা ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারবে এবং কিভাবে দিবে তাও জানতে পারবে।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সকল শিক্ষার্থীর তথ্য অনলাইনে সাবমিট করলে বোর্ড থেকে শিক্ষার্থীর দেয়া মোবাইল নম্বরে একটি SMS দেয়া হবে। এতে পরীক্ষার্থীর নাম, জেডিসি রেজিস্ট্রেশন নম্বর, জেডিসি (JDC) রােল, বাের্ড ফি, কেন্দ্র ফি ও প্রতিষ্ঠানের পাওনাসহ সর্বমােট ফি আলাদা আলাদাভাবে জানিয়ে দেয়া হবে। এরপর শিক্ষার্থীকে ২৪/০৪/২০২২ তারিখের মধ্যে অনলাইনে ফরম ফিলাপ করে ২৫ তারিখের মধ্যে অনলাইনে ফি প্রদান করতে হবে। নিম্নে ছকের পরে অনলাইনে ফরম পূরণের নিয়ম দেয়া হলো :

এসএসসি ফরম ফিলাপ শুরু১৩ এপ্রিল ২০২২ হতে
এসএসসি ফরম ফিলাপের শেষ সময়২৪ এপ্রিল ২০২২
অনলাইনে ফি জমা দেয়ার সময়২৫ এপ্রিল ২০২২ পর্যন্ত
ফরম ফিলাপের লিংকhttps://sbl.com.bd:7070/BoardFee
সোনালি এপডাউনলোড লিংক



আরও দেখুন : দাখিল পরীক্ষার রুটিন 2022 pdf

অনলাইনে দাখিল ফরম ফিলাপ করার নিয়ম ২০২২

২০২২ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম ফিলাপের ফি বিভিন্ন মাধ্যমে দেয়া যাবে। তবে সকল পদ্ধতিই অনলাইন প্রক্রিয়ায়, যার ফলে পরীক্ষার্থী নিজে নিজেই ফরম ফিলাপের ফি দিতে পারবে। তবে ফি দেয়ার আগে প্রথমে অনলাইনে ফরম ফিলাপ (পূরণ) বা আবেদন করতে হবে। অনলাইনে ফরম ফিলাপের আবেদন দুইভাবে করা যাবে। যথা: মােবাইল অ্যাপ ও ওয়েবসাইট। “Sonali e-Sheba” মােবাইল অ্যাপ বা সোনালি ব্যাংকের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে ফরম ফিলাপ করে ফরম ফিলাপের ফি দিতে হবে। তাহলে চলুন ফরম ফিলাপ পদ্ধতি ও ফি জমা দেয়ার নিয়ম জেনে নেওয়া যাক :

১ম ধাপ : একজন এসএসসি শিক্ষার্থী এই লিংক ব্যবহার করে অথবা “Sonali e-Sheba” মােবাইল অ্যাপ এর মাধ্যমে প্রথমে অনলাইনে ফরম ফিলাপ করবে। Sonali e-Sheba অ্যাপটি ডাউনলোড করুন এখান থেকে। আপনি যদি মোবাইল অ্যাপ থেকে ফরম ফিলাপ করেন তাহলে অ্যাপটি খুলার পর SSC/Eqiv. Form Fill-up অপশনটি সিলেক্ট করবেন। আর যারা লিংক থেকে আবেদন করবেন তাদেরকে শুধু লিংকে ক্লিক করলেই হবে।

২য় ধাপ : এবার Board Name অপশন এর ড্রপডাউন লিস্ট থেকে শিক্ষা বাের্ড নির্বাচন করুন। অতঃপর ১০ সংখ্যার এসএসসি এর রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং ৬ সংখ্যার জেএসসি / জেডিসি / সমমান এর রােল নম্বর প্রদান করে “Check” বাটনে ক্লিক করুন। তবে প্রদানকৃত তথ্যে ভুল থাকলে “Data Not Found” ম্যাসেজ প্রদর্শিত হবে। এক্ষেত্রে পুনরায় সঠিক তথ্য প্রদান করে “Check” বাটনে ক্লিক করুন।

৩য় ধাপ : এবার আপনার দেয়া তথ্যের সঠিকতা যাচাই করতে ডিসপ্লেতে প্রদর্শিত সকল তথ্য (শিক্ষার্থীর নাম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম, মােবাইল নম্বর, জেএসসি / সমমান এর রােল নম্বর এবং এসএসসি / সমমান এর রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং মােট টাকার পরিমাণ) সঠিক আছে কি না তা চেক করুন। তথ্য সঠিক থাকলে ফি পরিশােধের জন্য “Confirm Payment” বাটনে ক্লিক করুন।

This image has an empty alt attribute; its file name is %E0%A6%8F%E0%A6%87%E0%A6%9A%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%B8%E0%A6%BF-%E0%A6%AB%E0%A6%B0%E0%A6%AE-%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AA-%E0%A6%B8%E0%A7%8B%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%BF-%E0%A6%AA%E0%A7%87%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F-%E0%A6%97%E0%A7%87%E0%A6%9F%E0%A6%93%E0%A7%9F%E0%A7%87.jpg



দাখিল ফরম ফিলাপ ফি জমা দেয়ার নিয়ম ২০২২

উপরের ছবির ন্যায় ফি পরিশােধের জন্য “OK” বাটনে ক্লিক করলে চিত্রে প্রদর্শিত Sonali Payment Gateway পেজ প্রদর্শিত হবে। উক্ত পেজ থেকে এবার আপনি আপনার পছন্দমত যে কোন একটি মাধ্যম ব্যবহার করে ফি পরিশােধ করতে পারবেন। আপনি চাইলে মােবাইল ব্যাংকিং এর (bKash, Nagad, Rocket, Upay) বা যে কোন ব্যাংকের ভিসা / মাস্টার কার্ড, এমেক্স কার্ড, ডাচ-বাংলা ব্যাংকের নেক্সাস কার্ড অথবা সােনালী ব্যাংক লিমিটেডের কোন শাখায় আপনার একাউন্ট থাকলে “Account Transfer” থেকে ফি প্রদান করতে পারবেন। নিম্নে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ফি প্রদান করার নিয়মাবলি দেয়া হলো :

বিকাশ (bkash) এর মাধ্যমে ফি পরিশোধ পদ্ধতি

আপনি যদি মােবাইল ব্যাংকিং bKash এর মাধ্যমে ফি পরিশােধ করতে চান তাহলে “Mobile Banking” আইকনে ক্লিক করে bKash আইকনে ক্লিক করুন। নিম্নে প্রদর্শিত ২য় ছবির ন্যায় পেজ প্রদর্শিত হলে আপনার বিকাশ নম্বরটি প্রদানপূর্বক “Confirm” বাটনে ক্লিক করুন। এরপর আপনার বিকাশ নম্বরে SMS এর মাধ্যমে একটি Verification Code প্রেরিত হবে, যা উপরের ৩য় ছবিতে প্রদর্শিত bKash Verification Code ফিল্ডে প্রদান করে “Confirm” বাটনে ক্লিক করলে সফলভাবে ফি পরিশােধিত হবে এবং bKash থেকে একটি SMS নােটিফিকেশন মােবাইল নম্বরে প্রেরিত হবে।

বিকাশ (bkash) এর মাধ্যমে ফি পরিশোধ পদ্ধতি



নগদ (Nagad) এর মাধ্যমে ফি পরিশোধ পদ্ধতি : আপনি যদি মােবাইল ব্যাংকিং Nagad এর মাধ্যমে ফি পরিশােধ করতে চান তাহলে “Mobile Banking” আইকনে ক্লিক করে নগদ আইকনে ক্লিক করুন। উপরে প্রদর্শিত দ্বিতীয় ছবির ন্যায় পেজ প্রদর্শিত হলে আপনার নগদ একাউন্ট নম্বর প্রদানপূর্বক “Proceed” বাটনে ক্লিক করে PIN প্রদান করলে সফলভাবে ফি পরিশােধিত হবে এবং নগদ থেকে একটি SMS নােটিফিকেশন মােবাইল নম্বরে প্রেরিত হবে।

রকেট (Rocket) এর মাধ্যমে ফি পরিশোধ পদ্ধতি : আপনি যদি মােবাইল ব্যাংকিং Rocket এর মাধ্যমে ফি পরিশােধ করতে চান তাহলে “Mobile Banking” আইকনে ক্লিক করে রকেট আইকনে ক্লিক করুন। উপরে প্রদর্শিত দ্বিতীয় ছবির ন্যায় পেজ প্রদর্শিত হলে আপনার রকেট একাউন্ট নম্বর ও পিন প্রদানপূর্বক “submit” বাটনে ক্লিক করলে সফলভাবে ফি পরিশােধিত হবে এবং ডাচ – বাংলা ব্যাংক থেকে একটি SMS নােটিফিকেশন মােবাইল নম্বরে প্রেরিত হবে। সফলভাবে পেমেন্ট সম্পন্ন হলে একটি কনফার্মেশন এসএমএস (SMS) মােবাইলে প্রেরিত হবে এবং চিত্রে প্রদর্শিত পেমেন্ট স্লিপ প্রদর্শিত হবে যা সংরক্ষন করতে হবে।

ফরম ফিলাপ ফি জমা দেওয়ার পর করণীয়

ফি পরিশোধের পর পে স্লিপ সংরক্ষণ : এবার সফলভাবে পেমেন্ট সম্পন্ন হলে একটি কনফার্মেশন এসএমএস (SMS) মােবাইলে প্রেরিত হবে এবং চিত্রে প্রদর্শিত পেমেন্ট স্লিপ প্রদর্শিত হবে যা সংরক্ষন করতে হবে।

This image has an empty alt attribute; its file name is %E0%A6%8F%E0%A6%87%E0%A6%9A%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%B8%E0%A6%BF-%E0%A6%AB%E0%A6%B0%E0%A6%AE-%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AA-%E0%A6%AB%E0%A6%BF-%E0%A6%9C%E0%A6%AE%E0%A6%BE-%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A6%AE-%E0%A6%AA%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%B2%E0%A6%BF%E0%A6%AA-1024x598.jpg

পেমেন্ট স্লিপ না পেলে নিম্ন চিত্রে প্রদর্শিত Menu Bar এ ক্লিক করে Search Bar এ ট্রানজেকশন নম্বর লিখে সার্চ বাটনে ক্লিক করলে পেমেন্ট স্লিপ পাওয়া যাবে। Help menu – তে এসএসসি / দাখিল / সমমান পরীক্ষার ফরম ফিলাপের ফি পেমেন্ট সংক্রান্ত যাবতীয় সেবা প্রাপ্তির ই-মেইল এড্রেস ও মােবাইল নম্বর পাওয়া যাবে। Complain menu থেকে Make Complain অপশন ব্যবহার করে পেমেন্ট সংক্রান্ত যে কোনাে সমস্যা সমাধানের জন্য সাহায্য পাওয়া যাবে। Complain menu এর My Complain অপশন থেকে Complain ID অথবা Student ID ব্যবহার করে আপনার সাবমিটকৃত সমস্যার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

This image has an empty alt attribute; its file name is %E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B6-%E0%A6%8F%E0%A6%87%E0%A6%9A%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%B8%E0%A6%BF-%E0%A6%AB%E0%A6%B0%E0%A6%AE-%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AA-%E0%A6%AB%E0%A6%BF-%E0%A6%9C%E0%A6%AE%E0%A6%BE-%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A6%AE-p4.jpg

সতর্কীকরণ

এক : নিয়মিত, অনিয়মিত, আংশিক বিষয়ে অকৃতকার্য, শুধু আবশ্যিক বিষয়ে অকৃতকার্য, প্রাইভেট পরীক্ষার্থী, জিপিএ উন্নয়ন সহ সকল ধরণের পরীক্ষার্থীকে অবশ্যই ফরম পূরণ করতে হবে। কেননা ফরম পূরণ ব্যতীত পরীক্ষার্থীর ফলাফল প্রকাশের সুযোগ নেই। দুই : নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন পরীক্ষার্থী ফি পরিশােধ করতে ব্যর্থ হলে তার ফরম পূরণ সম্পন্ন হয়নি বলে গণ্য হবে।

(গ) এক্ষেত্রে সােনালী ব্যাংক এবং মােবাইল ফিনান্সশিয়াল সার্ভিস (MFS) এর সার্ভিস চার্জও (বাের্ড কর্তৃক নির্ধারণকৃত) অপারেটর কেটে নিবে। যে অপারেটরের মাধ্যমে ফি পরিশােধ করা হবে সেই অপারেটরের সংশ্লিষ্ট একাউন্টে / ওয়ালেটে বোর্ড ফি , কেন্দ্র ফি ও প্রতিষ্ঠানের পাওনা এবং সার্ভিস চার্জসহ সর্বমােট টাকার ন্যূনতম ব্যাল্যান্স থাকতে হবে।

(ঘ) পেমেন্ট করার পর পরীক্ষার্থীকে তার ফরম পূরণ সম্পন্ন হয়েছে মর্মে একটি SMS এর মাধ্যমে নিশ্চিত করা হবে। কোন কারিগরি ত্রুটির কারণে পরীক্ষার্থী SMS না পেলে নিজ নিজ বাের্ডের ওয়েবসাইটের Student Panel থেকে তার ফরম পূরণের Status যে কোন সময় দেখতে পাবে। প্রতিষ্ঠানকর্তৃক নির্বাচিত পরীক্ষার্থীরাই ফরম পূরণের জন্য ফি জমা দিতে পারবে।



দাখিল ফরম ফিলাপ ফি যত টাকা ২০২২

দাখিল ফরম ফিলাপ ফি কত টাকা? ২০২২ সালে যেহেতু প্রায় ৮ টি বিষয়ে পরীক্ষা নেয়ার কথা বলা হয়েছে এবং পরীক্ষার সময় ও নম্বর কমিয়ে পরীক্ষা নেয়া হবে সেহেতু ৮ টি পত্রের ফি আসবে (মানবিক) ১১৮৫ টাকা। তাছাড়া কেন্দ্র ফি সহ আনুষঙ্গিক আরও কিছু মিলে ১৭৫/- টাকা সহ গ্রুপ ভিত্তিক এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের ফি পৃথম পৃথক ছক আকারে দেয়া হলো :

বিবরণমানবিক শাখামুজাব্বিদ শাখাবিজ্ঞান শাখা
বোর্ড ফি১১৮৫ টাকা১১৮৫ টাকা১৩৭৫ টাকা
কেন্দ্র ফি (ব্যবহারিক সহ)৩৬০ টাকা৩৬০ টাকা৪৪০ টাকা
সর্বমোট১৫৪৫ টাকা১৫৪৫ টাকা১৮১৫ টাকা



তবে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের বেতন এতে সম্পৃক্ত হবে। তাই বেতন মিলে ফরম ফিলাপের ফি আরও দ্বিগুণ বা তার বেশি টাকা আসতে পারে। যাইহোক সব মিলিয়ে একজন (নিয়মিত, অনিয়মিত, জিপিএ উন্নয়ন ও প্রাইভেট) শিক্ষার্থীর এইচএসসি ফরম ফিলাপ ফি 2022 কত টাকা আসতে পারে, তা নিম্নের ছকে দেওয়া হলো :

পরীক্ষার্থীর ধরণমোট ফি যা দিতে হবে
নিয়মিত (মানবিক)১৫৪৫ টাকা + বেতন
নিয়মিত (কমার্স)১৫৪৫ টাকা + বেতন
নিয়মিত (বিজ্ঞান)১৮১৫ টাকা + বেতন
অনিয়মিত পরীক্ষার্থী (১ পত্র)৭৩৫/- টাকা
রেজি : নবায়ন কারী৮৩৫/- টাকা
জিপিএ উন্নয়ন (১ পত্র)৭৩৫/- টাকা

বিশেষ দ্রষ্টব্য : মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় কোন পরীক্ষার্থীর নৈর্বাচনিক বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা থাকলে বর্ণিত ফি এর সাথে অতিরিক্ত ৩০/- টাকা যােগ হবে। রেজিস্ট্রেশন কার্ডে উল্লেখিত সেশন প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষ মিলে সর্বমােট ১৮ মাস (অর্থাৎ ০১ জুলাই ২০২০ হতে ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ পর্যন্ত) এর বাইরে বেতন / ফি / সেশনচার্জ বা অন্য কিছু আদায় করা যাবে না। কোন অবস্থাতেই নির্ধারিত ফি এর অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা যাবে। এ সংক্রান্ত কোন তথ্য পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট কলেজের ফরম ফিলাপ প্যানেল বন্ধ করা করা সহ প্রয়ােজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দাখিল পরীক্ষা পদ্ধতি ২০২২ : ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষা ২০২২ উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এবং এ সংক্রান্ত কোন ফি আদায় করা যাবে না এবং এ বছর জুনের দিকে সংক্ষিপ্ত সিলাবাসের ভিত্তিতে প্রায় ৮ টি বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের।

আরও দেখুন

দাখিল ফরম ফিলাপ বিজ্ঞপ্তি ২০২২

দাখিল ফরম ফিলাপ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ -page-001
দাখিল ফরম ফিলাপ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ -page-002

আরও দেখুন : ২০২২ সালের আলিম পরীক্ষার ফরম পূরণের তথ্যবলী

২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার জন্য যারা ফরম ফিলাপ করতে পারবে

২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের নিয়মিত, ২০১৭-২০১৮ ও ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের অনিয়মিত এবং (রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে) জি, পি, এ উন্নয়ন বা Improvement পরীক্ষার্থীরা, ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার জন্য আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবে। প্রথমে দেখুন অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে

২০১৭-২০১৮ ও ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের রেজিষ্ট্রেশনধারী যে সকল ছাত্র-ছাত্রী ২০১৯ ও ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে অথবা পরীক্ষায় অংশহণ করেনি, তারা ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত (RP) পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে পারবে।

২০১৯ ও ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত ও নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৪র্থ বিষয় বাদে ০১ থেকে ০৪ বিষয়/গ্রুপে অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীরা, রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে অকৃতকার্য বিষয় বা বিষয়সমূহে ২০২১ সালের পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। 

তবে উক্ত পরীক্ষার্থীগণ ৪র্থ বিষয়ে পরীক্ষায় অংশহণ করতে পারবে না। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকৃত বিষয় বা বিষয়সমূহের প্রাপ্ত GP, উত্তীর্ণ বিষয় বা বিষয়সমূহের সংরক্ষিত GP এর সাথে যােগ করে পরিক্ষার্থীর GPA নির্ণয় করা হবে। তবে তারা ইচ্ছে করলে সকল বিষয়ের পরীক্ষায় অংশহণ করতে পারবে।

২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের যেসকল ছাত্র-ছাত্রী অতিরিক্ত বিষয় ছাড়া শুধুমাত্র ০১ বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে এবং রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ ২০২০ সালে শেষ হয়েছে, তারা ২০২১ সালের পরীক্ষার ফরম পূরণ এর পূর্বে ২০০/- টাকা ফি বাের্ডে জমা প্রদান করে রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ নবায়ন করে, শেষবারের মত ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষায় ঐ অকৃতকার্য বিষয়ের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

মান উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে

কেবল ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় সকল বিষয়ে অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ  হয়েছে এবং GPA ৫.০০ এর কম পেয়েছে তারা ইচ্ছা করলে রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে ২০২০ সালের দাখিল পরীক্ষায় GPA উন্নয়নের জন্য পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। তবে তাদেরকে সকল বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

যে সকল পরীক্ষার্থী ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষায় ০১ থেকে ০৪ বিষয়ে (অতিরিক্ত বিষয় বাদে) অকৃতকার্য হয়ে ২০২০ সালে দাখিল পরীক্ষায় অনিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে, তারা ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষায় জি.পি.এ উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার সিলেবাস

নিয়মিত, অনিয়মিত (RP), জিপিএ উন্নয়ন / Improvement ও আংশিক (০১ থেকে ০৪ বিষয়ে অকৃকার্য) সকল পরীক্ষার্থীকে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড, কর্তৃক প্রণীত শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচী (সিলেবাস), যা কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারনে ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার জন্য NCTB কর্তৃক পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে সে  অনুযায়ী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরণ সংক্রান্ত অন্যান্য কিছু নিয়মাবলী

কোনো অবস্থাতেই এক মাদ্রাসার রেজিস্ট্রেশনধারী ছাত্র-ছাত্রী বোর্ডের ছাড়পত্র ব্যতীত অন্য কোন মাদ্রাসার মাধ্যমে পরীক্ষায় অংশগহণ করতে পারবে না। আর ছাড়পত্র গ্রহণকারী পরীক্ষার্থীর ছাড়পত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি চূড়ান্ত তালিকার সাথে জমা দিতে হব।

পরীক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন কার্ডে উল্লিখিত বিষয়/বিষয়সমূহে-ই তাকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। বাের্ডের অনুমতিক্রমে বিষয় পরিবর্তন না করে রেজিস্ট্রেশন কার্ড বহির্ভূত কোন বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলে, অংশগ্রহণকৃত বিষয় বিষয়সমূহ বাদ দিয়েই তার ফল প্রকাশ করা হবে।

যে সকল উপজেলায় দাখিল পর্যায়ের পরীক্ষা কেন্দ্র আছে সেই উপজেলস্থ মাদরাসা কোন ক্রমেই অন্য উপজেলা/জেলার পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবে না। প্রত্যেক মাদ্রাসাকে নিজ উপজেলা পরীক্ষা কেন্দ্রকে পরীক্ষা কেন্দ্র হিসেবে উল্লেখ কতে হবে।

মান উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে

কোন অবস্থাতেই মান উন্নয়ন পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশনে উল্লেখিত বিষয় ও মাদ্রাসা পরিবর্তন করা যাবে না। তাদের (Online এ ফরম পূরণসহ প্রয়ােজনীয় কাগজপত্রের যথাস্থানে পূর্বের রেজিস্ট্রেশন নম্বর , রােল নম্বর , প্রাপ্ত GPA উল্লেখ করতে হবে। Online -এ পূণকৃত ফরমের প্রিন্ট আউট – এর ক্রমিকের স্কুলে GPA উন্নয়ন শব্দটি লিখতে হবে। 

তাদের পরীক্ষার পূরণকৃত ফরমের সাথে ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষার প্রবেশপত্র ও একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট এর সত্যায়িত ফটোকপি অবশ্যই সংযােজন করে চূড়ান্ত তালিকার সাথে আলাদাভাবে জমা দিতে হবে। পরীক্ষার্থীর GPA উন্নয়ন হলে তা গ্রহণ করা হবে। অন্যথায় পূর্বের GPA বহাল থাকবে।

27 thoughts on “দাখিল পরীক্ষার ফরম ফিলাপ ২০২২”

  1. স্যার, আপনি কি এইবার পরিক্ষার ফি অর্থাৎ 2021 সালের পরীক্ষার্থী যারা তাদেরটা হিসাব করে বলছেন?

  2. বিলম্ব ফি ব্যতীত ০১/০৪/২০২১ তারিখ পর্যন্ত আর বিলম্ব সহ ০৮/০৪/২০২১ তারিখ পর্যন্ত।

  3. যারা অনিয়মিত তাদের প্রতি সাব্জেক্ট কতো টাকা করে ধরছে

  4. আসসালামু আলাইকুম!
    স্যার,
    পরিক্ষার ফরম ফিলাপের সময় কি আরো বাড়ানো হবে?
    আমার ছোট বোনের ফরম ফিলাপ এখনো করাতে পারি নাই…..
    আর আমাদের মাদ্রাসায় সকলের কাছ থেকে প্রায় ৫৫০০ হাজার টাকা করে নিতেছে…..
    সঠিক কতো টাকা দাখিল মাদ্রাসার ১০ম শ্রেণীর ফরম ফিলাপের?
    ## Help me……

  5. ওয়ালাইকুমুস সালাম। ফরম ফিলাপের সময় আর বৃদ্ধি পাবে কি না তা বলতে পারবো না। তবে এখনও বিলম্ব ফি দিয়ে ফরম ফিলাপ করার সময় আছে। আগামী ৮ এপ্রিল ২০২১ তারিখ বিলম্ব ফি সাপেক্ষে ফরম ফিলাপের সময় শেষ হবে। আর বিলম্ব ফি প্রতি শিক্ষার্থী ১০০/- টাকা করে। সে হিসেবে বিলম্ব ফি সহ মোট ফরম ফিলাপের ফি আসবে ২৬০০ টাকার মত। কারন ২৫০০ টাকার পরিমাণ ই সঠিক (তবে সাব্জেক্ট কমবেশি হওয়ার কারণে ফি কম বেশি হতে পারে। তবে কখনো ২৮০০ এর বেশি যাবে না)

  6. Tarek Hossen

    স্যার! এখন দাখিল দশম শ্রেনির ফরম ফিলাপ করা যাবে কি? একটু বলবেন

  7. রাসেল

    আমরা বালুন্ডা দাখিল মাদরাসার পরীক্ষার্থী আমার কাছ থেকে ৩ টা পরীক্ষার জন্য ৩০০০ টাকা করে নিচ্ছে। না দিলে পরীক্ষা দিতে দিবেনা বলছে। আমাদের থেকে জোর করে বেশি টাকা নিচ্ছে।

    1. এখন তো দাখিল পরীক্ষার ফরম ফিলাপের সময় নেই। তাই হয়ত তারা এত টাকা চার্জ করতেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!